৬ষ্ঠ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের রেজিস্ট্রেশন শুরু

৬ষ্ঠ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের রেজিস্ট্রেশন শুরু হয়েছে। স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীদের জন্য বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি ও বাংলাদেশ ফ্রিডম ফাউন্ডেশন এই অলিম্পিয়াড ষষ্ঠবারের মতো এই  অলিম্পিয়াড আয়োজন করতে যাচ্ছে। তৃতীয় থেকে দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা online.bdjso.org ঠিকানায় গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে এই অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণ করতে পারবে। অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত হবে ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে।

প্রতি বছর আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াড (আইজেএসও)-তে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করার জন্য ৬ সদস্যের একটি পুর্নাঙ্গ আইজেএসও বাংলাদেশ দল গঠন করার জন্য আয়োজন করা হয় বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াড (বিডিজেএসও)। এবছর করোনা পরিস্থিতির কারণে ডিসেম্বরে জার্মানীতে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ১৭ তম আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াড আইজেএসও ২০২০ স্থগিত করা হয়েছে। অপরদিকে ছয় সদস্যের এই দল গঠনের জন্য ২০১৫ সাল থেকে নিয়মিত আয়োজিত হয়ে আসছে বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াড (বিডিজেএসও)। শিক্ষার্থীদের মাঝে বিডিজেএসওর ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখার জন্য এই বছর কোনো ভেন্যুতে অলিম্পিয়াড আয়োজন না করে অনলাইনে বিডিজেএসও আয়োজন করা হয়েছে।

 

এবারে রেজিস্ট্রেশন, আঞ্চলিক পর্ব, জাতীয় পর্ব ও বিডিজেএসও ক্যাম্প সম্পূর্ণ অনলাইনে অনুষ্ঠিত হবে। বাংলাদেশের যেকোনো অঞ্চলের স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসায় পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা এই প্লাটফর্মে রেজিস্ট্রেশন করে বিডিজেএসওতে অংশগ্রহণ করতে পারবে। অলিম্পিয়াডে অংশ নেওয়ার জন্য প্রথমে  online.bdjso.org ঠিকানায় গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। রেজিস্ট্রেশন করা যাবে আগামী ৩০ নভেম্বর রাত বারোটা পর্যন্ত।

 

অনলাইনে অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত হবে চারটি ক্যাটাগরিতে⎯প্রাইমারি (৩য়-৫ম), জুনিয়র (৬ষ্ঠ-৮ম), সেকেন্ডারি (৯ম-১০ম) এবং স্পেশাল (১১শ-১২শ, ১ জানুয়ারি ২০০৫-এর পর যাদের জন্ম)। “আগে এলে আগে পাবেন” ভিত্তিতে নির্দিষ্ট সংখ্যক শিক্ষার্থী রেজিস্ট্রেশনের সুযোগ পাবে। ২০২০ সালে শিক্ষার্থীরা যে শ্রেণিতে ছিল, সে অনুযায়ী তার ক্যাটাগরি নির্ধারিত হবে।

রেজিস্ট্রেশন করার পর শিক্ষার্থীরা নমুনা অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণ করতে পারবে। নমুনা অলিম্পিয়াড নিবন্ধনকারী সকলের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। পরবর্তীতে একটি মহড়া অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত হবে।যেখানে অংশগ্রহণ করে আঞ্চলিক অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহনের পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে পারবে। নমুনা ও মহড়া অলিম্পিয়াড ঐচ্ছিক। ডিসেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহে অনুষ্ঠিত হবে আঞ্চলিক পর্ব। আঞ্চলিক পর্বের বিজয়ীদের নিয়ে পরবর্তীতে জাতীয় পর্ব অনুষ্ঠিত হবে।

বিডিজেএসও যৌথভাবে আয়োজন করছে বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি ও বাংলাদেশ ফ্রিডম ফাউন্ডেশন। আয়োজনটির টাইটেল স্পন্সর আল আরাফাহ্‌ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড। এছাড়া সহযোগি হিসেবে প্রথম আলো, নলেজ পার্টনার ম্যাসল্যাব, রেডিও পার্টনার ঢাকা এফএম 90.4, ম্যাগাজিন পার্টনার মাসিক বিজ্ঞানচিন্তা ও কিশোর আলো। অলিম্পিয়াডের বিস্তারিত তথ্য পাওয়া যাবে: www.bdjso.org এই ওয়েবসাইটে। যে কোন তথ্যের জন্য যোগাযোগ করা যাবে info@bdjso.org, এই ইমেইলে।

 

১৬তম আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াড
বাংলাদেশের রেকর্ড সাফল্য : চার রৌপ্য ও দুই ব্রোঞ্জপদক জয়

১৬ তম আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডে (আইজেএসও) বাংলাদেশ চারটি রৌপ্য ও দুইটি ব্রোঞ্জপদক অর্জন করেছে। ৭০টি দেশের অংশগ্রহণে অনুর্ধ্ব-১৬ বয়সীদের আন্তর্জাতিক এই অলিম্পিয়াডটি কাতারের রাজধানী দোহায় ৩-১১ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়। এতে ৬ সদস্যের বাংলাদেশ দল অংশ নিয়ে সবাইই পদক জয়ের গৌরব অর্জন করে। ১১ ডিসেম্বর দুপুরে দোহায় কাতার ন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারে এক জমকালো অনুষ্ঠানে বিজয়ীদের হাতে পদক তুলে দেয়া হয়।

বাংলাদেশের পক্ষে রৌপ্যপদক জয় করেন বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ পাবলিক কলেজের অভিষেক মজুমদার সন্তু, বরিশাল ক্যাডেট কলেজের মুহতাসিন আল ক্বাফি, মুমিনুন্নিসা সরকারি মহিলা কলেজের কাজী তাসফিয়া জাহিন, ব্লু-বার্ড স্কুল এন্ড কলেজের জাকিয়া তাজনূর চৌধুরী দিয়া। এছাড়া ব্রোঞ্জপদক অর্জন করে ময়মনসিংহ জিলা স্কুলের জুহায়ের মাহদিউল আলম আশফি এবং গ্রীন ফিল্ড ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজের আহমেদ আল-জুবায়ের আনাম। 

কাতার থেকে বাংলাদেশ দলের কান্ট্রি কো-অর্ডিনেটর ও বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ফারসীম মান্নান মোহাম্মদী জানান, “এ যাবৎকালে আইজেএসও-তে এটা বাংলাদেশের সর্বোচ্চ সাফল্য। ৫ম বারের মত আমরা এখানে অংশ নিয়েছি। বিজয়ের মাসে বাংলাদেশের এমন সাফল্যে আমি আনন্দিত ও গর্বিত”। বাংলাদেশ দলের পক্ষে রৌপ্যপদক জয়ী অভিষেক মজুমদার সন্তু বলেন, “ গতবার বৎসোয়ানায় আমি ব্রোঞ্জপদক পেয়েছিলাম। তখন থেকেই আমার চেষ্টা ছিল এবছর আরও ভালো করা। এবছর বাংলাদেশ দলের প্রস্তুতি ক্যাম্প অনেক বেশিদিন ধরে হয়েছে এবং ল্যাবের প্রস্তুতিতে জোর দেয়া হয়েছে। যা আমাকে এবং আমাদের দলকে এমন সাফল্য অর্জন করতে সহায়তা করেছে। আমি আনন্দিত।” কাতারে ছয় সদস্যের বাংলাদেশ দলের সঙ্গে অধ্যাপক ফারসীম মান্নান মোহাম্মদী ছাড়াও রয়েছেন দলনেতা অধ্যাপক ফারহানা মান্নান ও বিডিজেএসও কো-অর্ডিনেটর মাহমুদ মীম। আগামীকাল বৃহস্পতিবার ঢাকা ফিরবে বাংলাদেশ দল। ঢাকা এয়ারপোর্টে দলকে সংবর্ধনা দেবে বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি।

মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের জন্য আয়োজিত এই আন্তর্জাতিক অলিম্পিয়াডে বাংলাদেশ দল পঞ্চমবারের মত অংশ নিয়েছে। ৭০ দেশের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন ও জীববিজ্ঞানের উপর প্রতিযোগিতা করে এই গৌরব অর্জন করে বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা। গত ৩ ডিসেম্বর শুরু হওয়া এই অলিম্পিয়াডে শিক্ষার্থীরা এমসিকিউ, থিওরি ও ব্যবহারিক অংশের পরীক্ষা দেয়। উল্লেখ্য, এর আগে চার বছরে বাংলাদেশ দল ৬ টি রৌপ্য ও ১১ টি ব্রোঞ্জ পদক অর্জন করেছিলো। 

ছয় সদস্যের বাংলাদেশ দলের এ বাছাইপর্ব শুরু হয় জুলাই মাসের শেষ সপ্তাহে আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক ৫ম বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের (বিডিজেএসও) আঞ্চলিক পর্বের মধ্য দিয়ে। ৮ টি আঞ্চলিক পর্ব, ৭ টি স্কুল অলিম্পিয়াড ও একটি ই-অলিম্পিয়াডে অংশ নেয় প্রায় ৯ হাজার শিক্ষার্থী। এদের মধ্য হতে বিজয়ী ৬০০ জন শিক্ষার্থী অংশ নেয় ৫ম বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের জাতীয় পর্বে। জাতীয় পর্বে বিজয়ী হয় ৫২ জনকে নিয়ে ১১-১৩ সেপ্টেম্বর তিন দিনব্যাপী আয়োজন করা হয় ৫ম বিডিজেএসও ক্যাম্প। ক্যাম্পের ফলাফল বিবেচনা করে বাছাই করা ১৩ জন শিক্ষার্থীদের নিয়ে ১৪-১৭ সেপ্টেম্বর আয়োজন করা হয় বিডিজেএসও এক্সটেনশন ক্যাম্প। এরপর ক্যাম্পে অনুষ্ঠিত টিম সিলেকশন টেস্টের ফলাফল ও তাদের অলিম্পিয়াডের পারফর্মেন্স বিবেচনা করে ঘোষণা করা হয় ছয় সদস্যের বাংলাদেশ দল।

সেপ্টেম্বর থেকে নভেম্বর পর্যন্ত কয়েকটি ধাপে প্রশিক্ষণ দেয়া হয় বাংলাদেশ দলকে। ভলান্টিয়ারস এসোসিয়েশন ফর বাংলাদেশ ও আপন উদ্যোগ ফাউন্ডেশনের ডরমিটরিতে তিন ধাপে মোট ২১ দিনের আবাসিক ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া মাকসুদুল আলম বিজ্ঞান ল্যাবরেটরি (ম্যাসল্যাব)-এ আয়োজিত হয় তিন দফায় ১৫ দিনের অনাবাসিক ক্যাম্প। ল্যাবরেটরি ক্লাসগুলো অনুষ্ঠিত হয় ম্যাসল্যাবে। এই প্রশিক্ষণ কর্মসূচীতে ১০০ ঘণ্টার বেশি থিওরি ক্লাস, ৫০ ঘণ্টার বেশি ল্যাবরেটরি ক্লাস ও প্রায় ৭০ ঘণ্টার প্রশ্ন সমাধান ক্লাসে অংশ নেয় ১৬তম আইজেএসও-তে অংশ নিতে যাওয়া বাংলাদেশ দলের ছয় সদস্য। ক্লাসগুলি পরিচালনা করেন বিডিজেএসও এর স্বেচ্ছাসেবকেরা । 

উল্লেখ্য, আল আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের পৃষ্ঠপোষকতায় আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের জন্য বাংলাদেশ দল নির্বাচন করে যৌথভাবে বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি ও বাংলাদেশ ফ্রিডম ফাউন্ডেশন। অনুষ্ঠানটির সহযোগী হিসেবে রয়েছে প্রথম আলো। ম্যাগাজিন পার্টনার হিসেবে আছে কিশোর আলো ও বিজ্ঞানচিন্তা। টেলিভিশন পার্টনার হিসেবে নাগরিক টিভি ও নলেজ পার্টনার হিসেবে আছে ম্যাসল্যাব, ইন্টারনেট পার্টনার অ্যাম্বার আইটি এবং রেডিও পার্টনার হিসেবে ছিল ঢাকা এফ এম। বিশেষ সহযোগী হিসেবে ছিল ভলান্টিয়ার্স এ্যাসোসিয়েশন ফর বাংলাদেশ।

১৬তম আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডে যোগ দিতে কাতার যাচ্ছে বাংলাদেশ দল

(পিছনের সারীর বাম থেকে) অভিষেক মজুমদার সন্তু, কাজী তাসফিয়া জাহিন, জুহায়ের মাহদিউল আলম আশফি, জাকিয়া তাজনূর চৌধুরী দিয়া, আহমেদ আল-জুবায়ের আনাম, মুহতাসিন আল ক্বাফি

আগামী ০৩-১২ ডিসেম্বর ২০১৯ কাতারের রাজধানী দোহায় অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াড (আইজেএসও)-এর ১৬তম আসর। অনূর্ধ্ব১৬ বছর বয়সীদের মেধার এ লড়াইয়ে বিশ্বের ৬৯ টি দেশের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছে। বিজ্ঞান-মেধার এ বিশ্বমঞ্চে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করবে আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক ৫ম বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের মাধ্যমে সারাদেশ থেকে বাছাইকৃত সেরা ছয় শিক্ষার্থী। তারা হলো  বরিশাল ক্যাডেট কলেজের মুহতাসিন আল ক্বাফি,বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ পাবলিক কলেজের অভিষেক মজুমদার সন্তু, মুমিনুন্নিসা সরকারি মহিলা কলেজের কাজী তাসফিয়া জাহিন, ব্লু-বার্ড স্কুল এন্ড কলেজের জাকিয়া তাজনূর চৌধুরী দিয়া, ময়মনসিংহ জিলা স্কুলের জুহায়ের মাহদিউল আলম আশফি এবং গ্রীন ফিল্ড ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজের আহমেদ আল-জুবায়ের আনাম। আগামী ২রা ডিসেম্বর কাতারের দোহার উদ্দেশে রওনা দেবেন বাংলাদেশ দল। উল্লেখ্য, ৩ ডিসেম্বর উদ্বোধনী পর্বের মাধ্যমে শুরু হতে যাচ্ছে ১৬তম আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াড ২০১৯। 

 

বাংলাদেশ দলের সদস্যদের সবার সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার জন্য ১লা ডিসেম্বর ২০১৯, রবিবার বিকেল ৪টায় সোনারগাঁও হোটেলের মেঘনা কক্ষে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথি বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের সাবেক জ্যেষ্ঠ বিজ্ঞানী ড. রেজাউর রহমান বাংলাদেশ দলের সদস্যদের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেন। তিনি দলের সদস্যদেরকে নানা পরামর্শ দেন এবং ভালো ফলাফলের আশাবাদ ব্যক্ত করেন। উপস্থিত ছিলেন পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠান আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব সাব্বির আহমেদ। তিনি বলেন, এবছরের দলকে অনেকগুলো ধাপে বাছাই করা হয়েছে। এই দলটি সারাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করছে। বিজয়ের মাসে দলটি আমাদেরকে একটি ভালো ফলাফল এনে দিবে। সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন আল- আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট কাজী মাহমুদ করিম, ব্যাংকের  ভাইস প্রেসিডেন্ট ও প্রধান জনসংযোগ কর্মকার্তা জালাল আহমেদ, বাংলাদেশ দলের দলনেতা প্রফেসর ফারসীম মান্নান মোহাম্মাদী ও বাংলাদেশ ফ্রিডম ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক সাজ্জাদুর রহমান চৌধুরী। 

বাংলাদেশ দলের সদস্য জাকিয়া তাজনূর চৌধুরী দিয়া বলেন, অনেকগুলো ক্যাম্পের মাধ্যমে আমরা প্রস্তুতি নিয়েছি। বিজয়ের মাসে বাংলাদেশকে রিপ্রেজেন্ট করতে পেরে আমরা গর্বিত। আমরা বাংলাদেশের সাফল্যের ধারাবাহিকতা বজায় রাখার ব্যাপারে আশাবাদী। 

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ছয় সদস্যের বাংলাদেশ দলের এ বাছাইপর্ব শুরু হয় জুলাই মাসের শেষ সপ্তাহে আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক ৫ম বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের আঞ্চলিক পর্বের মধ্য দিয়ে। ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী, বরিশাল, সিলেট, দিনাজপুর ও নেত্রকোনা এই আটটি অঞ্চলে অনুষ্ঠিত হয় আঞ্চলিক বাছাইপর্ব। এ ছাড়া প্রথমবারের মত একটি স্কুল বা আশপাশের কয়েকটি স্কুলের সমন্বয়ে ৭টি অঞ্চলে  আয়োজন করা হয় স্কুল অলিম্পিয়াড। এবারও অনলাইনে অনুষ্ঠিত হয় একটি ই-অলিম্পিয়াড। যেখানে সারাদেশ থেকে অংশ নেয় প্রায় ২ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী। আঞ্চলিক পর্ব, স্কুল অলিম্পিয়াড ও ই-অলিম্পিয়াডে অংশ নেয় প্রায় ৯ হাজার শিক্ষার্থী। এদের মধ্য হতে বিজয়ী ৬০০ জন শিক্ষার্থী অংশ নেয় ৫ম বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের জাতীয় পর্বে। ৬ সেপ্টেম্বর শুক্রবার এই জাতীয় পর্ব অনুষ্ঠিত হয় ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকে। জাতীয় পর্বে বিজয়ী হয় ৫২ জন। জাতীয় পর্বের সকল বিজয়ীকে নিয়ে ১১-১৩ সেপ্টেম্বর তিন দিনব্যাপী আয়োজন করা হয় ৫ম বিডিজেএসও ক্যাম্প। ক্যাম্পের ফলাফল বিবেচনা করে বাছাই করা ১৩ জন শিক্ষার্থীদের নিয়ে ১৪-১৭ সেপ্টেম্বর ভলান্টিয়ার্স এ্যাসোসিয়েশন ফর বাংলাদেশের ডর্মেটরিতে দ্বিতীয়বারের মত আয়োজন করা হয় বিডিজেএসও এক্সটেনশন ক্যাম্প। এরপর ক্যাম্পে অনুষ্ঠিত টিম সিলেকশন টেস্টের ফলাফল ও তাদের পারফর্মেন্স বিবেচনা করে ঘোষণা করা হয় ছয় সদস্যের বাংলাদেশ দল। এই দলই অংশ নেবে কাতারের দোহায় অনুষ্ঠেয় ১৬তম আইজেএসও-তে।

সেপ্টেম্বর থেকে নভেম্বর পর্যন্ত কয়েকটি ধাপে প্রশিক্ষণ দেয়া হয় বাংলাদেশ দলকে। ভলান্টিয়ারস এসোসিয়েশন ফর বাংলাদেশ ও আপন উদ্যোগ ফাউন্ডেশনের ডরমিটরিতে তিন ধাপে মোট ২১ দিনের আবাসিক ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া মাকসুদুল আলম বিজ্ঞান ল্যাবরেটরি (ম্যাসল্যাব)-এ আয়োজিত হয় তিন দফায় ১৫ দিনের অনাবাসিক ক্যাম্প। ল্যাবরেটরি ক্লাসগুলো অনুষ্ঠিত হয় ম্যাসল্যাবে। এই প্রশিক্ষণ কর্মসূচীতে ১০০ ঘণ্টার বেশি থিওরি ক্লাস, ৫০ ঘণ্টার বেশি ল্যাবরেটরি ক্লাস ও প্রায় ৭০ ঘণ্টার প্রশ্ন সমাধান ক্লাসে অংশ নেয় ১৬তম আইজেএসও-তে অংশ নিতে যাওয়া বাংলাদেশ দলের ছয় সদস্য। ক্লাসগুলি পরিচালনা করেন বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের ট্রেইনাররা। 

 

উল্লেখ্য, আল আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের পৃষ্ঠপোষকতায় আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের জন্য বাংলাদেশ দল নির্বাচন করে যৌথভাবে বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি ও বাংলাদেশ ফ্রিডম ফাউন্ডেশন। অনুষ্ঠানটির সহযোগী হিসেবে রয়েছে প্রথম আলো। ম্যাগাজিন পার্টনার হিসেবে আছে কিশোরআলো ও বিজ্ঞানচিন্তা। টেলিভিশন পার্টনার হিসেবে নাগরিক টিভি ও নলেজ পার্টনার হিসেবে আছে ম্যাসল্যাব, ইন্টারনেট পার্টনার অ্যাম্বার আইটি এবং রেডিও পার্টনার হিসেবে ছিল ঢাকা এফ এম। বিশেষ সহযোগী হিসেবে ছিল ভলান্টিয়ার্স এ্যাসোসিয়েশন ফর বাংলাদেশ।  

বাংলাদেশ দলের জন্য শুভ কামনা

আগামী ৩-১১ ডিসেম্বর ২০১৮ বতসোয়ানায় অনুষ্ঠেয় ১৫তম আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের (আইজেএসও) জন্য ছয় সদস্যের বাংলাদেশ দল নির্বাচন করা হয়েছে। নির্বাচিত শিক্ষার্থীরা হলো ইমতিয়াজ তানভীর রহিম (নটরডেম কলেজ) মুয়াম্বার সারোয়ার নিবিড় (নারায়ণগঞ্জ আইডিয়াল স্কুল), আবসার খান সিয়াম (মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল), আবরার তাসনিম আবির (সেন্ট গ্রেগরিজ হাই স্কুল) মিনহাজুর রহমান চৌধুরী (মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল) এবং অভিষেক মজুমদার সন্তু (বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ পাবলিক কলেজ)।

উল্লেখ্য, এবছর বাংলাদেশ দল নির্বাচনের জন্য জুলাই মাসে দেশজুড়ে অনুষ্ঠিত হয় ৮টি আঞ্চলিক অলিম্পিয়াড ও একটি ই-অলিম্পিয়াড। এ আয়োজনগুলোতে অংশ নেয় প্রায় ছয় হাজার শিক্ষার্থী। সব অঞ্চলের বিজয়ীদের নিয়ে ঢাকায় আয়োজিত হয় জাতীয় জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াড। এতে অংশ নেয় ৪৫৪ জন শিক্ষার্থী। জাতীয় অলিম্পিয়াডের বিজয়ীদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হয় ৪র্থ বিডিজেএসও আবাসিক ক্যাম্প। ক্যাম্পের ফলাফল ও পারফরম্যান্স টেস্টর বাছাইদের নিয়ে অনুষ্ঠিত এক্সটেনশন ক্যাম্প এবং টিম সিলেকশন টেস্ট ইত্যাদির মাধ্যমে নির্বাচিত করা করা হল ছয় সদস্যবিশিষ্ট এবারের বাংলাদেশ দল।

বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের আয়োজক বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি ও বাংলাদেশ ফ্রিডম ফাউন্ডেশন। পৃষ্ঠপোষকতা করেছে আল আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড। সহযোগী হিসেবে ছিল প্রথম আলো ও আই-পে। এছাড়া নলেজ পার্টনার ম্যাসল্যাব, টেলিভিশন পার্টনার নাগরিক টিভি এবং ম্যাগাজিন পার্টনার হিসেবে ছিল বিজ্ঞানচিন্তা ও কিশোর আলো।

বাংলাদেশ দলের জন্য শুভ কামনা

শুরু হয়েছে ই-অলিম্পিয়াডের রেজিস্ট্রেশন

No automatic alt text available.বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স ই-অলিম্পিয়াড হবে আঞ্চলিক অলিম্পিয়াডের অনুরূপ। এখানে রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম ও ১ জানুয়ারি ২০০৩ এর পরে যাদের জন্ম এমন ১১শ ও ১২শ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা এই ই-অলিম্পিয়াডে অংশ নিতে পারবে।

ই-অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত হবে ২৫ জুলাই ২০১৮ তারিখ সন্ধ্যা ৭:৩০ থেকে ৮:৪৫ পর্যন্ত। শিক্ষার্থীরা অংশ নিতে পারবে যে কোন জায়গায় বসে ইন্টারনেটের মাধ্যমে। অংশগ্রহণকারীদের মধ্য হতে সর্বোচ্চ নম্বরপ্রাপ্ত নির্দিষ্টসংখ্যক শিক্ষার্থী অংশ নেওয়ার সুযোগ পাবে ৪র্থ বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের জাতীয় পর্বে।

ই-অলিম্পিয়াডের প্রশ্ন হবে আঞ্চলিকের অনুরূপ, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন ও জীববিজ্ঞান থেকে।

#BdJSO18 #IJSO2018 #SPSB #eOlympiad

শুরু হয়েছে ৪র্থ বিডিজেএসও

২৪ জুলাই ২০১৮

Image may contain: 1 personশুরু হচ্ছে আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক ৪র্থ বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াড।

এ বছর ৮ টি অঞ্চলে অনুষ্ঠিত হবে আঞ্চলিক অলিম্পিয়াড। অঞ্চলগুলো হল: ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, দিনাজপুর, খুলনা, বরিশাল, সিলেট ও নেত্রকোণা।

সারাদেশে একযোগে রেজিস্ট্রেশন শুরু হচ্ছে আগামীকাল ২৭ জুন থেকে। শুধুমাত্র ঢাকা অঞ্চলের রেজিস্ট্রেশন শুরু হবে ২৯ জুন থেকে।

৪র্থ বিডিজেএসও-এর লোগো উন্মোচিত

২৪ জুলাই ২০১৮

আজ আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হচ্ছে আল আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক ৪র্থ বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের কার্যক্রম। এই উপলক্ষে উন্মোচন করা হলো এবছরের লোগো। লোগোটি তৈরি করেছেন তানভির হাসান সিয়াম। উন্মুক্ত প্রতিযোগিতার মাধ্যমে লোগোটি নির্বাচন করা হয়েছে। যারা লোগো জমা দিয়েচ্ছিলেন তাদের সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ। সিয়ামকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

উল্লেখ্য, আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের বাংলাদেশ দল নির্বাচন উপলক্ষে সারাদেশে আয়োজন করা হয় বিডিজেএসও। এবছর আটটি আঞ্চলিক পর্ব ও একটি ই-অলিম্পিয়াডের মাধ্যমে হবে প্রাথমিক বাছাই। তারপর এই পর্বের সেরাদের নিয়ে হবে জাতীয় পর্ব। জাতীয় পর্বের সেরাদের নিয়ে ৪র্থ বিডিজেএসও ক্যাম্পের মাধ্যমে নির্বাচন করা হবে ছয় সদস্যের বাংলাদেশ দল। যারা অংশ নিবে ১৫তম আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডে, বতসোয়ানায়।

বিডিজেএসও আয়োজন করে বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি (এসপিএসবি) এবং বাংলাদেশ ফ্রিডম ফাউন্ডেশন। পৃষ্ঠপোষকতা করছে আল আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড। সহযোগি হিসেবে আছে প্রথম আলো এবং আইপে। ম্যাগাজিন পার্টনার কিশোর আলো এবং বিজ্ঞানচিন্তা।

#BdJSO18 #IJSO

নারায়নগঞ্জ আইডিয়াল স্কুলে প্রস্তুতি কর্মশালা অনুষ্ঠিত

শুরু হয়েছে আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক ৪র্থ বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের (বিডিজেএসও) প্রচার-প্রচারণা ও এক্টিভেশন।Image may contain: 2 people, people smiling, people sitting and indoor
আজ নারায়ণগঞ্জ আইডিয়াল স্কুলে অনুষ্ঠিত হয়েছে একটি প্রস্তুতি কর্মশালা। কর্মশালায় স্কুলটির ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণির প্রায় ৫০ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। কর্মশালাটি পরিচালনা করেন বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতির একাডেমিক দলের সদস্য ওমর ফারুক ও মোঃ আল-ফারাবী। এছাড়া গত বছর নেদারল্যান্ডসে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের বাংলাদেশ দলের অন্যতম সদস্য উক্ত স্কুলের ১০ম শ্রেণির ছাত্র মুয়াম্বার সারোয়ার নিবিড় তার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করে।

Image may contain: 2 people, people smiling, outdoorএ বছর বিডিজেএসও এর আঞ্চলিক পর্ব শুরু হবে ২০ জুলাই থেকে এবং আফ্রিকার বতসোয়ানায় অনুষ্ঠেয় এবারের ১৫তম আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডে অংশ নিবে বাংলাদেশ।

দিনাজপুরে প্রস্তুতি কর্মশালা

Image may contain: textআল-আরাফা ইসলামী ব্যাংক ৪র্থ বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের প্রস্তুতি হিসেবে আগামী ২২ জুন দিনাজপুরে একটি কমর্শালা অনুষ্ঠিত হবে। স্থানীয় আয়োজক হিসেবে রয়েছে দিনাজপুর ম্যাথ ক্লাব।

অলিম্পিয়াডের রেজিস্ট্রেশন এই মাসেই শুরু হবে এবং এবার ১৫ তম আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের আসর বসবে আফ্রিকার বতসোয়ানায়।

ভেন্যু: দিনাজপুর মিউনিসিপ্যাল (বাংলা) হাই স্কুল, দিনাজপুর।
সময়: সকাল সাড়ে ১০টা। সকলের জন্য উন্মুক্ত।

৪র্থ বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের জন্য লোগো আহবান

Image may contain: text

বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি ও Bangladesh Freedom Foundation-BFF-এর যৌথ উদ্যোগে এবছর আয়োজিত হতে যাচ্ছে ৪র্থ বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াড। এবারের আয়োজনে ৮টি আঞ্চলিক পর্ব অনুষ্ঠিত হবে দশজুড়ে। একইসঙ্আগে হবে একটি ই-অলিম্পিয়াড। সেখান থেকে সেরাদের নিয়ে হবে জাতীয় পর্ব। জাতীয় পর্বের সেরারা অংশ নিবে ৪র্থ বিডিজেএসও ক্যাম্পে। ক্যাম্পের সেরাদের নিয়ে গঠিত হবে ৬ সদস্যের বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াড দল। যারা বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করবে ডিসেম্বরে বোতসোয়ানায় অনুষ্ঠেয় আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডে।

আগের তিন বছরে আমাদের দল আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াড থেকে জিতে এসেছে ৪টি রৌপ্য এবং ৭টি ব্রোঞ্জ পদক, দক্ষিণ কোরিয়া, ইন্দোনেশিয়া আর নেদারল্যান্ডস থেকে।

এশিয়া ইউরোপ জয়ের পড়ে আফ্রিকা মহাদেশ জয়ের এই অভিযানে যুক্ত হতে পারেন আপনিও। ৪র্থ বিডিজেএসও-এর জন্য একিট লোগো খুঁজছি আমরা। আপনি যদি লোগো ডিজাইন করতে পারেন, তবে আপনার ডিজাইন করা লোগোই হতে পারে এবারের বিডিজেএসও-এর প্রধান স্মারক।

লোগো ডিজাইনের সময় আপনাকে যে বিষয়গুলো মাথায় রাখতে হবে:

১. এটি আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের বাংলাদেশ ভার্সন।
২. ১৫ বছরের নিচের যে কেও এই অলিম্পিয়াডে অংশ নিতে পারবে।
৩. পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, জীববিজ্ঞান ও গণিত থেকে প্রশ্ন থাকে এই অলিম্পিয়াডে।
৪. পরীক্ষায় এমসিকিউ, লিখিত ও ব্যবহারিক পরীক্ষা থাকে।
৫. আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক এই আয়োজনের টাইটেল স্পন্সর। তাই ব্যাংকের লোগো মূল লোগোর মধ্যে থাকতে হবে। এর বাইরে থাকতে হবে "৪র্থ বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াড" কথাটি।
৬. নির্বাচিত লোগো ডিজাইনারকে জাতীয় পর্বে সম্মাননা জানানো হবে।
৭. লোগোর স্বত্ত্ব এসপিএসবির হবে।

নোট: লোগো কেমন হতে হবে আইডিয়া পেতে দেখতে পারেন গত বছরের বিডিজেএসও-এর লোগো, যা এই পোস্টের সঙ্গেই আছে।

আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে এই পোস্টে কমেন্ট করুন, অথবা মেইল করুন info@bdjso.org ঠিকানায়। আপনার লোগোটি পাঠিয়ে দিন ওই একই মেইলে। লোগো পাঠানো যাবে ১৫ জুন ২০১৮ তারিখ পর্যন্ত। তবে দ্রুত পাঠানোর জন্য আমরা উৎসাহিত করছি।

বিডিজেএসও হাই-পারফরমেন্স ক্যাম্প ২০১৮

বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করন সমিতি (এসপইএসবি) প্রথমবারের মত আয়োজন করছে বিডিজেএসও হাই-পারফরমেন্স ক্যাম্প ২০১৮। অনাবাসিক এই ক্যাম্পটি অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১০-১২ মে, ২০১৮ তারিখে।
সময়: প্রতিদিন সকাল ৯ টা থেকে বিকেল ৬টা।
স্থান: ৭৮ গ্রীন রোড (চতুর্থ তলা), ফার্মগেট, ঢাকা-১২১৫।
এই ক্যাম্পে অংশ নিতে পারবে পূর্বের বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডে বিজয়ী শিক্ষার্থিদের মধ্যে যাদের জন্মতারিখ ১ জানুয়ারি ২০০৩ বা এর পরে।
রেজিস্ট্রেশন ফি: ১০২০/= টাকা।

রেজিস্ট্রেশন: প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের ফোন করে জানানো হয়েছে। নির্বাচিত শিক্ষার্থীরাই শুধু রেজিস্ট্রেশন করা সাপেক্ষে অংশ নিতে পারবে।

রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া: প্রথমে 01556-338340 (বিকাশ পারসোনাল) এই নম্বরে ১০২০/= টাকা পাঠাতে হবে। টাকা পাঠানোর পর ফিরতি মেসেজে পাওয়া ট্রানজেকশন নম্বরটি সংরক্ষণ করতে হবে। এরপর নিচের ফর্মটি পূরণ করতে হবে।
রেজিস্ট্রেশন ফর্ম: https://goo.gl/E84atL
যে কোন প্রয়োজনে: ০১৬৭০২০৪০৪৫ (মাহমুদ মীম), ০১৬৮৮৮২৪৫০৭ (খালিদ বিন ইসলাম)

বিডিজেএসও গার্লস ক্যাম্প ২০১৮

আফ্রিকার অন্যতম ধনী দেশ বতসোয়ানা । এ বছরের ডিসেম্বরে বতসোয়ানায় অনুষ্ঠিত হবে ১৫তম আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াড (আইজেএসও)। আইজেএসও-র প্রস্তুতির জন্য এবং বাংলাদেশের মেয়েদেরকে বিজ্ঞানক্ষেত্রে এগিয়ে নেয়ার লক্ষ্যে অনুষ্ঠিত হতে ২য় বারের মতো বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি আয়োজন করতে যাচ্ছে বিডিজেএসও গার্লস ক্যাম্প ২০১৮। ৭ম-১০ম শ্রেণি পড়ুয়া মেয়েরা এই ক্যাম্পে অংশগ্রহণ করতে পারবে।
অংশগ্রহণ করার জন্য প্রথমে রেজিস্ট্রেশন ফি হিসেবে রকেট অথবা বিকাশের মাধ্যমে ১৫০০ টাকা পরিশোধ করতে হবে।
ক্যাম্প সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে এই লিংকে: https://goo.gl/8QtkbB
রেজিস্ট্রেশন সংক্রান্ত প্রয়োজনে যোগাযোগ
মোজাম্মেল হোক (০১৫১৫৬০৭৬৯৭)
বিডিজেএসও এবং আইজেএসও সংক্রান্ত প্রয়োজনে যোগাযোগ
খালিদ বিন ইসলাম (০১৬৮৮৮২৪৫০৭)

আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের বাংলাদেশ দলের চারটি পদক জয়

৩-১২ ডিসেম্বর ২০১৭ নেদারল্যান্ডসে অনুষ্ঠিত ১৪তম আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডে (আইজেএসও) বাংলাদেশ দল একটি রৌপ্য এবং তিনটি ব্রোঞ্জ পদক অর্জন করেছে।

এর মধ্যে প্রথম বার অংশ নিয়ে আবসার খান সিয়াম অর্জন করে একটি রৌপ্য পদক। আহমেদ নাফিস ফারহান, ইমতিয়াজ তানভীর রাহীম এবং রুবাইয়াৎ জালাল একটি করে ব্রোঞ্জ পদক অর্জন করে।

আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের বাংলাদেশ দল ঘোষণা

ijso2017 logo এর চিত্র ফলাফলআগামী ৩-১২ ডিসেম্বর ২০১৭ নেদারল্যান্ডসে অনুষ্ঠেয় ১৪তম আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের (আইজেএসও) জন্য ছয় সদস্যের বাংলাদেশ দল নির্বাচন করা হয়েছে। নির্বাচিত শিক্ষার্থীরা হলো আহমেদ নাফিস ফারহান (উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল ও কলেজ), রুবায়াত জালাল (রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল), এ.কে.এম. সাদমান মাহমুদ (নটরডেম কলেজ), ইমতিয়াজ তানভীর রহিম (বরিশাল জিলা স্কুল) মুয়াম্বার সারোয়ার নিবিড় (নারায়ণগঞ্জ আইডিয়াল স্কুল) এবং আবসার খান সিয়াম (মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল)।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ দল নির্বাচনের জন্য এবছর দেশজুড়ে ৯টি আঞ্চলিক অলিম্পিয়াড ও একটি ই-অলিম্পিয়াড আয়োজন করা হয়। এ আয়োজনগুলোতে অংশ নেয় প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার শিক্ষার্থী। সব অঞ্চলের বিজয়ীদের নিয়ে ঢাকায় অনুষ্ঠিত জাতীয় জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াড। এতে অংশ নেয় ৪৮১ জন শিক্ষার্থী। জাতীয় অলিম্পিয়াডের বিজয়ীদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হয় ৩য় বিডিজেএসও ক্যাম্প। ক্যাম্পের ফলাফলের মাধ্যমে নির্বাচন করা হয় বাংলাদেশ দল। বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের আয়োজক বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি ও বাংলাদেশ ফ্রিডম ফাউন্ডেশন। পৃষ্ঠপোষকতা করছে আল আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড। সহযোগী হিসেবে ছিল প্রথম আলো এবং ম্যাগাজিন পার্টনার বিজ্ঞানচিন্তা।

বাংলাদেশ দলের জন্য শুভ কামনা।

জাতীয় পর্বের ফলাফল ২০১৭

আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড ৩য় বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের জাতীয় পর্বে প্রায় ৫০০ শিক্ষার্থী অংশ নেয়। অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীদের মধ্য হতে জাতীয় পর্বে নির্বাচিত করা হয় ৫২ জন শিক্ষার্থী। চ্যাম্পিয়ন, ১ম রানার আপ ও ২য় রানার আপ হিসেবে তিন ক্যাটাগরিতে বিজয়ী হওয়া এই ৫২ শিক্ষার্থী ও আরও কিছু নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হবে ৩য় বিডিজেএসও ক্যাম্প।

ক্যাম্পটি হোস্ট করছে ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ। অনুষ্ঠিত হবে ১৭-২০ আগস্ট।

ক্যাম্প থেকে বাছাই করা হবে ডিসেম্বরে নেদারল্যান্ডসে অনুষ্ঠেয় আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের জন্য বাংলাদেশ দল।

ই-অলিম্পিয়াডের ফলাফল প্রকাশিত

প্রকাশিত হল ৭ আগস্ট অনুষ্ঠিত ই-অলিম্পিয়াডের ফলাফল। জুনিয়র ক্যাটাগরি থেকে ৯ জন, সেকেন্ডারি ক্যাটাগরি থেকে ২০ জন ও বিশেষ ক্যাটাগরি থেকে ১১ জন, মোট ৪০ জন শিক্ষার্থী ই-অলিম্পিয়াডের মাধ্যমে নির্বাচিত হয়েছে।

আঞ্চলিক অলিম্পিয়াড ২০১৭

বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াড (বিডিজেএসও) প্রথমবার আয়োজিত হয় ২০১৫ সালে। সে বছর শুধু ঢাকায় জাতীয় অলিম্পিয়াডের আয়োজন করা হয়। একই ধারাবাহিকতায় ২০১৬ সালে আয়োজিত হয় ২য় বিডিজেএসও। এবছরও শুধু ঢাকায় জাতীয় উৎসব আয়োজিত হয়। ২০১৭ সালে অর্থাৎ এ বছর বিডিজেএসও-এর পরিসর বাড়িয়ে আয়োজিত হচ্ছে সারাদেশে। এবছর সারাদেশে ৯টি আঞ্চলিক অলিম্পিয়াডের আয়োজন করা হবে। আঞ্চলিকের বাছাইকৃত শিক্ষার্থীরা অংশ নিবে ঢাকায় অনুষ্ঠেয় ৩য় বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডে।